Shironamhin Shironamhin

আবার হাসিমুখ

কথা ও সুরঃ জিয়া
সেই কবে ছিল উচ্ছাস, কিছু শঙ্কায় ভরা চুম্বন
ছিল প্রেমিকার ঘন নিশ্বাস, হাসিমুখে ফোয়ারা।

এই অবেলায় ফোঁটা কাশফুল, নিয়তির মত নির্ভুল
যেন আহত কোন যোদ্ধার বুকে বেঁচে থাকা এক মেঘফুল
যদি ঘরে ফেরা পাখি নিশ্চুপ, হৃদয়ে ঢেউ ভাঙ্গে ছুপছুপ,
তবু জাহাজীর নাগরিক ঢেউ, অপরাধ মেনে নিয়ে কেউ কেউ,
যদি শোঁকগাথা হাতে বহুদূর যাও একদিন ঠিকই এনে দেব হাসিমুখ।।

রোদ্দুর, একসাথে হেঁটে হেঁটে যেতে চাই বহুদূর
বুকের ভেতর ডানা ঝাপ্ টায় পাখি, বেপরোয়া ভাংচুর।
তুমি চেয়ে আছ তাই আমি পথে হেঁটে যাই,
তুমি চেয়ে আছ তাই আমি পথে হেঁটে যাই।

বুকের পাঁজরে ওড়ে প্রজাপতি, স্বপ্নের দিগন্ত রঙিন।
ইচ্ছে হলেই এনে দিতে পারে বেপরোয়া রোদ্দুর ঝলমল দিন।
প্রেমিকার মুখ রক্তিম ছিল রোদ উঠে গেছে তাই
তো্মাদের নগরীতে আমি আজও হেঁটে বেড়াই।।
রোদ্দুর, চলো একসাথে হেঁটে যেতে চাই বহুদূর
বুকের ভেতর ডানা ঝাপ্ টায় পাখি, বেপরোয়া ভাংচুর।

বৃষ্টি ভেজা সুখ-দুখ, খোলা জানালায় হাসিমুখ
উড়ছে কিছু প্রজাপতি মেঘ মনের জানালায়।
জানালায় ছিল রোদ্দুর, মেঘ ভেসে গেল বহূদুর
নগরের প্রিয় চিরকুট সব জীবন ছেড়ে পালায়।
তুমি চেয়ে আছ তাই আমি পথে হেঁটে যাই,
হেটে হেটে বহুদূর, বহুদূর যেতে চাই।
প্রতিটি রাস্তায় প্রতিটি জানালায়
তোমাদের যারা হাসিমুখে বহুদূর যেতে চায়;
তুমি চেয়ে আছ তাই, আমি পথে হেটে যাই,
হেটে হেটে বহুদূর, বহুদূর …………

আততায়ী

কথাওসুরঃজিয়া

সেদিন ঝড়ের রাতে, আততায়ী খুন্ হয়ে গেল প্রেমিকার হাতে
সেদিন মধ্যদুপুরে, স্বপ্নের নায়ক থমকে গেল নগরীর পথে।

অজস্র তারার ভীড়ে, দিশেহারা রাজপথে উড়ছে আসাদের শার্ট
অব্যর্থ নিশানায় তোমার শীতল চোখে,
বেপরোয়া উত্তাপে, ভেঙ্গেচুরে আততায়ী রাত।
রক্তেভেজা আসাদের শার্ট উড়ছে কফিশপে ঝাঁঝাঁলো বাতাসে
আততায়ী নিঃশ্বাস হাড়িয়ে গেছে নিয়তির ঠিক আশেপাশে …

সেদিন অন্ধনগরে, guard of honor রক্তের দিন লিপি জাগিয়ে রাখে
এখনো ঝড়ের রাতে, বেপরোয়া হৃদয়ে প্রেমিকার নিঃশ্বাস থেমে থাকে …

যুদ্ধ আর বিপ্লব কি একই রকম অর্থ বোঝাতে পারে?
আততায়ী দৃষ্টি শূন্য, বিপন্ন …
নীল নক্শায় আঁকা সম্ভাবনার কিছু অন্ধকারে
সূতীক্ষ ফলায় রক্তের ফোয়ারা আসাদের শার্ট ছুঁয়ে
দিতেও পারে …
তবে কি আততায়ী খুন হয়ে যাবে শীতল দুচোখের আজন্ম ভালোবাসার অভিসারে?

কিছু কথা

কথা ও সুরঃ জিয়া

কিছু কথা স্তব্ধ, কিছু বোকা শব্দ
কিছু কথা কখনো হারিয়ে যায়।
উদাস কিছু দুপুর, কিছু ভেঙ্গে যাওয়া সুর
কিছু সাদা প্রশ্ন আমায় ভাবায়।
কিছু হাসিখেলা, কাটে সারাবেলা
উদাস পথে হয়তো একলা চলা
নিবিড় জনারণ্যে, শুধু তোমার জন্যে
কিছু কথা কখনো হয়নি বলা।

বইয়ের পাতায় কিছু শব্দ খুঁজে পাইনা,
কিছু কিছু প্রশ্ন নিয়ে ভাবতে আর চাইনা।
রূপকথার পঙ্খিরাজ একদিন নেমে আসবে
রাস্তার কালো পিচে সে স্বপ্ন নিয়ে ভাসবে
যান্ত্রিক এই নগর, হয়ে যাবে অবসন্ন
কিছু কথা বলছি শুধু তোমার জন্য।

বদলে যাবার দিন, স্বপ্ন দেখার দিন
কিছু কথা ভেসে যাক, অন্ধ রাস্তায়
মনের বন্ধ জানালায়, স্বপ্নের কথা জমে থাক্
কিছু কথা কখনো বাঁচতে শেখায়।
কিছু হাসিখেলা, কাটে সারাবেলা
অবাধ্য কিছু স্বপ্ন নিয়ে একলা চলা
নিবিড় জনারণ্যে, মেঘলা এই ক্ষণে,
কিছু কথা কখনো হয়নি বলা।

কিছু কথার কোন ভাষা প্রয়োজন হয়না। কিছু কথা শ্লোগান দিতে শেখায়, অনুপ্রেরনা দেবার সাহস রাখে, সমাজ বদলে দেবার সম্ভাবনা জাগায়>
কিছু কথা দুঃসময়ে বন্ধুর মত পাশে দাঁড়ায়।
কিছু কথা রূপকথার পঙ্খিরাজ নামিয়ে নিয়ে আসে … আমাদের শহরের ধোঁয়াটে বাতাসে।
কিছু কথা মারটিন লুথার কিং এর মত অসম্ভবের স্বপ্ন দেখে।
কিছু কথা আমার মত বোবা … যা শুধু সুরেলা কবিতার জন্ম দিতে পারে> জন্মই যার আজন্ম অপরাধ!

চিঠি...

কথাঃ জিয়া, সুরঃ শাফিন/জিয়া

চিঠি পৌঁছে যাবে, শহর জোড়া
চিঠি পৌঁছে যাবে, সবুজ গ্রামে
চিঠি পৌঁছে যাবে, পৃথিবীর প্রান্তে
চিঠি পৌঁছে যাবে রঙ্গিন খামে।

চিঠি পৌঁছে যাবে, মিছিলে মিছিলে
আসছে খবর; হবে ক্ষিধের অবসান
রুদ্ধ দারিদ্রের চেনা ঠিকানায়
চলে যাক চিঠি সবুজ ভরসায় ।।

একটা চিঠি, যার বিবরন ছিল লক্ষ শিশুর ইতিহাস
শিশুর দুচোখে কান্নায় লেখা ছিল, ক্ষিধে মুক্তির বসবাস
একটা রঙ্গিন খামে ঠিকানা ছিল, কোন এক সবুজ গ্রাম
শিক্ষার সংলাপে দূর হয়ে যাবে দারিদ্রের অভিধান…

চিঠি পৌঁছে যাবে, ক্ষিধের ঠিকানায়
চিঠি পৌঁছে যাবে, অপার আশায়
চিঠি পৌঁছে যাবে, মনের প্রান্তে
চিঠি পৌঁছে যাবে… ভালবাসায়।।

চিঠি পৌঁছে যাবে, মিছিলে মিছিলে……
অন্ধ/রুদ্ধ দারিদ্রের চির/চেনা ঠিকানায়
চলে যাক চিঠি সবুজ ভরসায় ।।

বৃষ্টিকাব্য

কথা ও সুরঃ জিয়া

কোথায় যেন বৃষ্টির রিমঝিম শোনা যায়
বইছে বাতাস, কাশফুল ছুঁয়ে শন্শন্
বৃষ্টির উচ্ছ্বাস ছুঁয়ে যায় নাগরিক উপকূল
রিমঝিম রিমঝিম নাচলো আমার মন।
অনেকদিন, অপেক্ষায়, সমান্তরাল খেকেই গেল জেব্রাক্রসিং
বৃষ্টির প্রার্থনায় কাশফুল নতজানু; উড়ে চলে তৃষ্ণার্ত রংহীন ফড়িং …
আজ জানালার বাইরে একঝাঁক বৃষ্টির রিমঝিম রিমঝিম
বইছে বাতাস, কাশফুল ছুঁয়ে ছুঁয়ে ছুঁয়ে …
রাস্তার সিগনালে কন্ডাকটর জেব্রাক্রসিং
অনেকদিন হেরে যাওয়া মন দিল ধুঁয়ে।।

রাজপথে ছুটে যায় যান্ত্রিক ফড়িং আর রিক্সায় আঁকা পেইন্টিং
নাগরিক বৃষ্টির ছাঁটে রবীন্দ্রনাথ অসহায়, তাই কন্ডাকটর জেব্রাক্রসিং
প্রেমিকার উচ্ছ্বাসে “বাদল দিনের প্রথম কদম ফুল” যদিও করতেই হবে দান
হৃদয়ের খুব কাছে জমে থাকা অভিমানে নাগরিক বৃষ্টির এই গান।।
অনেকযুগ, অপেক্ষায়, মেঘের ভেলায় ভেসেই গেল এ দিন
নাগরিক উচ্ছ্বাসে কাশফুল নতজানু; উড়ে চলে তৃষ্ণার্ত রংহীন ফড়িং …

Martin scorsese ‘র Taxi Driver চলচ্চিত্র দেখে অসম্ভব অনুপ্রানিত হয়েছিলাম। একদিন বৃষ্টি এসে শহরের সব ধুলোময়লা, ক্রোধ, অপমান, বঞ্চিত হবার গ্লানি ধুয়ে নিয়ে যাবে।
আমাদের শহরে কি কখনও এমন বৃষ্টি আসবে? নাকি নাগরিক ব্যস্ততায় আমরা বুঝতেই পারিনি; এমন বৃষ্টি এসেছিল কোন এক উদাস দুপুরে। আমরা বরণ করে নেইনি বলে অভিমানী বৃষ্টি থমকে গেল নগরের উপকুলে। শহরের জেব্রা ক্রসিং তাকে অর্কেস্ট্রার কন্ডাকটরের মত নির্লিপ্ত মিখে জানিয়ে দিল “এখানে ব্যস্ত জনতা রাস্তা রাস্তা পার হচ্ছে, তুমি আর ঢুকতে পারবে না।“ রবীন্দ্রনাথ এই সময়ে কি বৃষ্টি উদযাপন করতেন? নাকি অসহায় কন্ডাকটর সেজে জেব্রা ক্রসিং এ দাঁড়িয়ে হিসেব করতেন; কবে সমান্তরাল রেখাগুলো হাত মেলাবে?

আহত কিছু গল্প
কথা ও সুরঃ তুহীন

কখনো কি তুমি আকাশকে বলেছ আমার কথা?
কখনো কি তুমি বাতাসকে ডেকেছ, ভেবেছো, বুঝেছ আমার ব্যাথা, আকুলতা?
কখনও কি তুমি আমার, আমি তোমার বলে চিৎকার করে কাঁদনি?
তারাদের সামনে…
জেনেছি তুমি জানো; জেনে আমার জন্য না হয় কিছুটা মানো…

কখনও কি তুমি আমার সঙ্গে হাটো?
হেটে যাই তবু অনন্ত পথঘাট…
কখনও কি পথ ভোল, পথ চলো, ভেবে হতাশ হয়ে পড়নি?
সময়ের সামনে…
জেনেছি তুমি জানো; জেনে আমার জন্য না হয় কিছুটা মানো…

সময় ছিল অল্প
জ্যোৎস্না রাতে বৃষ্টি ভেজা আহত কিছু গল্প
মেলে স্বপ্ন ডানা…

কখনও কি তুমি মনের আকাশে ভাসো ?
অন্ধরাতে আমায় ভালবাসো ?
কখনও কি তুমি ক্লান্ত, উদভ্রান্ত মনে স্বপ্নের থেকে জাগোনি?
আমারই সামনে…
জেনেছি তুমি জানো; জেনে আমার জন্য না হয় কিছুটা মানো।।

মিছিল

কথাঃ জিয়া, সুরঃ দিয়াত/জিয়া

মিছিলের আর কিছু বাকি, কেউ অধিকার খোঁজো নাকি?
গণতান্ত্রিক রূপকথা, সাইনবোর্ড হয়ে ঝুলে থাকি।
অযথাই হেঁটে যায় যারা, শ্লোগান দিতেই দিশেহারা
গোলাপের বাগানে; বারূদের উত্তাপ জ্বলা তারা …
সহসা মিছিলে … সংলাপের দলে … আড্ডায় কোলাহলে
ঝড় উঠে তোলপাড়, কোনো অধিকার বুঝে নেয়া মিছিলে সহসা
তাই হেঁটে হেঁটে যাই, পাল্টাতে চাই হেরে যাওয়া বিপন্ন ভরসা।
দুহাতে রক্তের দাগ, হৃদয়ে বরফ, ভাঙ্গছেনা বিপ্লবী চেতনা,
তাই দেয়াললেখার মানচিত্রে খুঁজে ফিরি জীবনের ঠিকানা।।

সহসা একদিন তোমাদের না বলা কথা
মিছিলের শ্লোগান হবে, ঝড় তুলে ভেঙ্গে সব একাকার
শ্লোগানের আঘাতে, কতকাল জেগে থাকা
অজস্র তারার ভীড়ে খুঁজে ফিরি তোমাদের অধিকার
চকচকে গ্লাসে লেগে আছে রক্তের টান
বন্ধী জেগে থাকে দু’চোখে অন্ধ স্বপ্ন নিয়ে
বাতাসে ভেসে যায় বারুদের তীব্র ঘ্রান
কতকাল হেরে যেতে হবে আর স্বপ্ন দেখতে গিয়ে?

রোদ ক্যানভাস

কথাঃ জিয়া, সুরঃ দিয়াত

মিথ্যে গল্প নয়,
মিথ্যে স্বপ্ন নয়
ইচ্ছের ফড়িং’রা বলে দেয়্লেকি সত্যি হয়
একরাশ সুবাতাস,
একমুঠো দীর্ঘশ্বাস
একই বিকেলে ভিজে যায় নীল আকাশ।।

আনমনে রোদ ক্যানভাসে ছবি আঁকা
অন্ধ হলেও বেঁচে থাক ভালো থাকা

নিঃশ্বাস ভবঘুরে
ইচ্ছের প্রান্তরে
যদিও খুঁজে ফেরে
কোন চেনা ঠিকানা
চিন্তার বাতিঘরে
স্বপ্নেরা কড়া নাড়ে
রোদ ক্যানভাস জুড়ে
ইচ্ছের সীমানা।।

যদি সময়ের জানালা ধরে, আজন্ম স্বপ্ন সাজিয়ে যাই
কখনো কি আর তারাদের আসরে, ইচ্ছের সীমানা খুঁজে বেড়াই

জানিনা কতকাল জেগে থাকি
কীভাবে সময়কে বেঁধে রাখি।

অ্যালবামের শেষ পর্যায়ে লেখা গান … সৃষ্টির ক্যানভাস খুজে বেড়াতে গিয়ে মনে হল, মনের অন্ধকার ভুবনের কথা বলেছিলাম “বন্ধ জানালা”য়। এবার না হয় আলোকিত অংশের কথা বলা যাক, যেখানে ইচ্ছের ফড়িঙরা নির্ভয়ে উড়ে বেড়ায়। … as if we might let some new light through old windows>

শনশন, যদিও কাশবন

কথাঃ জিয়া, সুরঃ শাফিন

শনশন, যদিও কাশবন দুলছে মন, দমকা হাওয়ায় সারাক্ষন
মেঘের ইশারা চাই যখন।
টিপটিপ বৃষ্টি নামবে, স্বপ্ন ভাঙ্গবে, কিছুটা উচ্ছ্বাস ডেকে আনবে
হারিয়ে গেলেই প্রতিক্ষন।
ঝড়ো হাওয়া … ফিরে যাওয়া … তারা ঢাকা অশ্রুঋণ
আনবে কোনো সোনালি দিন।।
এই আকাশ জুড়ে স্বপ্নপুরে, ফিরছে যারা অনেক দূরে
দুচোখ জুড়ে স্বপ্নদিন।।
সন্ধ্যা হল আঁধার নামল সেই কখন
গল্পে গল্পে কেটে গেল সারাটাক্ষণ
মেঘের দেশে, বৃষ্টি শেষে, ভেসে ভেসে কোন সুদূরে
দমকা হাওয়ায় উড়ছে মন।
তবু, সুযোগ পেলে, দু’হাত মেলে, সরব চোখে হারিয়ে গেলে
ফিরবে কি আর সোনালি দিন?

চিঠি

কথাঃ জিয়া, সুরঃ শাফিন/জিয়া

চিঠি পৌঁছে যাবে শহর জোড়া
চিঠি পৌঁছে যাবে সবুজ গ্রামে,
চিঠি পৌঁছে যাবে পৃথিবীর প্রান্তে
চিঠি পৌঁছে যাবে রঙ্গিন খামে।
চিঠি পৌঁছে যাবে মিছিলে মিছিলে,
আসছে খবর, হবে ক্ষিধের অবসান।
দুঃখ দারিদ্রের চির ঠিকানায়,
চলে যাক চিঠি সবুজ ভরসায়।
চিঠি পৌঁছে যাবে
একটা চিঠি যার বিবরণ, ছিল-
লক্ষ শিশুর ইতিহাস,
শিশুর দু’চোখে কান্নায় লেখা ছিল-
ক্ষিধে মুক্তির বসবাস।
একটা রঙ্গিন খামে ঠিকানা ছিল,
কোনও এক সবুজ গান
শিক্ষার সংগ্রামে দূর হয়ে যাবে,
দারিদ্রের অভিধান।
চিঠি পৌঁছে যাবে,
ক্ষিধের ঠিকানায়
চিঠি পৌঁছে যাবে,
অপার আশায়।
চিঠি পৌঁছে যাবে,
কোণের প্রান্তে
চিঠি পৌঁছে যাবে,
ভালবাসায়

চিঠি পৌঁছে যাবে মিছিলে মিছিলে,
আসছে খবর, হবে ক্ষিধের অবসান।
দুঃখ দারিদ্রের চির ঠিকানায়,
চলেযাক চিঠি সবুজ ভরসায়।
চিঠি পৌঁছে যাবে মিছিলে মিছিলে,
আসছে খবর, হবে ক্ষিধের অবসান।
অন্ধ-দারিদ্রের চির ঠিকানায়,
চলেযাক চিঠি সবুজ ভরসায়।

Aatotayee // [5] Shironamhin Shironamhin
icon-download
  1. Aatotayee // [5] Shironamhin Shironamhin
  2. Abar Hashimukh // [5] Shironamhin Shironamhin
  3. Chithi // [5] Shironamhin Shironamhin
  4. Aahoto Kichu Golpo // [5] Shironamhin Shironamhin
  5. Shonshon Jodio Kashbon // [5] Shironamhin Shironamhin
  6. Bristi kabbo // [5] Shironamhin Shironamhin
  7. Kichu Kotha // Shironamhin - Shironamhin Shironamhin
  8. Michil // Shironamhin - Shironamhin Shironamhin
  9. Pori // Shironamhin - Shironamhin Shironamhin